তড়িৎ প্রবাহের চুম্বকীয় ফল থেকে কিছু প্রশ্নের উত্তর

 Q.1.লেঞ্জের সুত্র থেকে কীভাবে শক্তির সংরক্ষণ সূত্র পাওয়া যায় ?

উত্তর : লেঞ্জের সূত্রানুযায়ী তড়িৎ চুম্বকীয় আবেশের ক্ষেত্রে আবিষ্টতড়িচ্চালক বলের অভিমুখ এমন হয় যেন এই আবিষ্ট তড়িচ্চালক বল বর্তনীতে তড়িৎপ্রবাহ সৃষ্টির কারণকে বাঁধা দিতে পারে। অর্থাৎ কুন্ডলীর কাছে চুম্বক নিয়ে যেতে গেলে আবিষ্ট তড়িচ্চালক বল এই গতিকে বাধা দেবে আবার চুম্বককে দূরে নিয়ে যেতে গেলেও গতিকে বাধা দেবে। ফলে চুম্বক বা কুন্ডলী যে কোনাে একটিকে আপেক্ষিক ভাবে গতিশীল করতে হলে এই বাধা বলের বিরুদ্ধে কার্য করতে হবে। এই কার্যই তড়িচ্চালক বল আবিষ্ট করবে এবং শক্তির সংরক্ষন নীতি বজায় রাখবে। অর্থাৎ লেঞ্চের সূত্র থেকে শক্তির সংরক্ষণ সূত্র পাওয়া যায়।



Q.2. একটি এরােপ্লেন অনুভূমিকভাবে উড়ে যাওয়ার সময় তার ডানার দুই প্রান্তবিন্দুর মধ্যে বিভবপ্রভেদ সৃষ্টি হয় কেন ? এই বিভব প্রভেদ কী কী বিষয়ের ওপর নির্ভর করে ?

উত্তর : একটি উড়ােজাহাজ ভূপৃষ্ঠের ওপর দিয়ে অনুভূমিকভাবে যখন উড়ে যায়, তখন তার ডানা দুটি মিশে যে দীর্ঘ পরিবাহী তৈরি করে, তা ক্রমাগতভূ চৌম্বক ক্ষেত্রের বলরেখাগুলিকে ছেদ করতে থাকে। এর ফলে ওই পরিবাহীতে তড়িৎচুম্বকীয় আবেশ সৃষ্টি হয়। অর্থাৎ, ডানা দুটির প্রান্তবিন্দু দুটির মধ্যে বিভব বৈষম্য দেখা দেয়।

এই বিভব পার্থক্যের মান – (i) ডানা দুটির প্রান্তবিন্দুর দূরত্ব (ii) এরােপ্লেনের গতিবেগ (iii) গতির অভিমুখ, (iv) ভূচৌম্বক প্রাবল্যের অনুভূমিক উপাংশ ও (v) ভূ-চৌম্বক বিনতিকোণের ওপর নির্ভর করে।

Q.3. চৌম্বক ক্ষেত্র একটি ভেক্টর রাশি—ব্যাখ্যা করাে।

উত্তর: চৌম্বক ক্ষেত্রের চিত্ররুপ হল চৌম্বক বলরেখা। চৌম্বক বলরেখার কোনাে বিন্দুতে অঙ্কিত স্পর্শকের অভিমুখ থেকে ঐ বিন্দুতে চৌম্বক ক্ষেত্রের অভিমুখ জানা যায়। চৌম্বক ক্ষেত্রে কোনাে আহিত কণার গতিবেগের যে দিকটির জন্য চৌম্বক বল শূন্য হয়, সেই দিকটি (বা তার বিপরীত দিকটি) হল চৌম্বক ক্ষেত্রের অভিমুখ । আবার বিভিন্ন বিন্দুতে চৌম্বক বলরেখার সংখ্যা ঘনত্বের তুলনা করে ওইসব বিন্দুতে চৌম্বক ক্ষেত্রের মানের তুলনা করা যায়। একক ধনাত্মক আধান যুক্ত একটি আহিত কণা একক গতিবেগে কোনাে চৌম্বক ক্ষেত্রে গতিশীল হলে একটি বিশেষ দিকের।ক্ষেত্রেই কণাটি সর্বোচ্চ চৌম্বক বল অনুভব করে, এই সর্বোচ্চ চৌম্বক বলটির মানই হল চৌম্বক ক্ষেত্রের মান। তাই বলা যায় যে চৌম্বক ক্ষেত্র একটি ভেক্টর রাশি। একে সাধারণত B চিহ্নের মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। কোনাে তড়িৎ বাহীতারের সন্নিহিত অঞ্চলে B -এর অভিমুখ ম্যাক্সওয়েলের কর্ক-স্কুনিয়মের সাহায্যে নির্ণয় করা যায় এবং মান নির্ণয়ের ক্ষেত্রে বায়াে-সাভার্ট সূত্র প্রয়ােগ করা হয়। 

Post a Comment

Previous Post Next Post