ফটোগ্রাফির ব্যবসা কিভাবে করবেন

ফটোগ্রাফির ব্যবসা শুরুর কথা ভাবছেন?

জেনে নিন কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য।

        ডিজিটাল ক্যামেরা আসার পর থেকে ফটোগ্রাফিতে এক বিশাল পরিবর্তন এসেছে। প্রয়োজনীয় ফটো তোলা সামগ্রী যেমন পরিবর্তন হয়েছে তেমনি পরিবর্তন হয়েছ ফটোগ্রাফির প্রতি আমাদের সমাজের দৃষ্টিভঙ্গি।



         ফটোগ্রাফির ব্যবসা করার প্রথম শিক্ষনীয় বিষয়টি হলো ফটো তোলার দক্ষতা, ফটো তোলার প্রতি আপনার আত্মবিশ্বাস এবং বিভিন্ন ধরনের লেন্স ব্যবহারের দক্ষতা আপনাকে একজন সুনির্দিষ্ট প্রফেশনাল ফটোগ্রাফার বানিয়ে ফেলবে।
         আমাদের ভারতবর্ষের বাজারে আপনার প্রায় এক থেকে দেড় লাখ টাকা খরচ করে এই ব্যবসা শুরু করতে পারেন।

         আসুন আজ আমরা জেনে নেই ভারতবর্ষে ফটোগ্রাফি করতে হলে কি কি ছোট ছোট ধাপ আমাদের জানতে হবে।


1.বাছাই করে নিন আপনার ফটোগ্রাফির ক্ষেত্র।


         প্রথমেই সব ঠিক করে নিতে হবে যে কী ধরনের ছবি আপনি তুলতে ভালোবাসেন। পর্ট্রেট ফটোগ্রফি, ল্যান্ডস্কেপ ফটোগ্রাফি, মডেল ফটোগ্রাফি, কমার্শিয়াল ফটোগ্রাফি, ফুড ফটোগ্রাফি, অ্যাস্ট্রো ফটোগ্রাফি, ওয়েডিং ফটোগ্রাফি এমন অনেক অপশন আপনার কাছে আছে। এখান থেকে আপনার বাছাই করতে হবে কোনটি আপনার ভালো লাগে এবং কোনটিতে আপনি সুদক্ষ।



        ফটোগ্রাফির ব্যবসা অনেক ধরনের হয়ে থাকে। যেমন আপনি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফটো আপলোড করে ব্যবসা করতে পারেন বা আপনার তুলা মডেল সুট আপনি অনেক জার্নালিস্টদের কাছে সেল করতে পারেন তাদের কভার পেজের জন্য ইত্যাদি।


2. অ্যাসাইনমেন্ট ফটোগ্রাফি

      
       এক্ষেত্রে আপনার ক্রেতার চাহিদা অনুযায়ী আপনাকে ফটো তুলে দিতে হবে। এবং এক্ষেত্রে তারা সাধারণত প্রফেশনাল ফটোগ্রাফার দেরি হায়ার করেন যে কাজে খুবই সুদক্ষ। যে কোন ইভেন্ট শুট করা বা বিয়েবাড়িতে ফটোগ্রাফি করা এই ফটোগ্রাফির অন্তর্গত। বিয়ের মরসুমে এই কাজ পাওয়া যায় প্রচুর। নিয়মিত ও ভাল আয়ের জন্য বেশিরভাগ ফটোগ্রাফারই এই ব্যবসাই বেশি পছন্দ করে।



3. স্টক ফটোগ্রাফি


        অ্যাসাইনমেন্ট ফটোগ্রাফির পাশাপাশি আপনি যে ব্যবসাটি শুরু করতে পারেন সেটি হল স্টক ফটোগ্রাফি। এক্ষেত্রে আপনার বিভিন্ন ধরনের ছবি সংগ্রহ করে ক্রেতার কাছে আপনার ছবিগুলি বেচতে হবে একটি ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। খবরের কাগজে ব্যবহৃত ছবি, বিভিন্ন ওয়েবসাইটে ব্যবহৃত ছবি এবং বিভিন্ন বই সামগ্রির কাভার পেজ এ ব্যবহৃত ছবি এই ফটোগ্রাফির অন্তর্গত।
নিম্নলিখিত সাইটগুলোর সাহায্যে আপনি অনলাইনে ছবি বিক্রি করতে পারেন।
 অনলাইনে ছবি বিক্রি করার কিছু ওয়েবসাইট গুলি হল CanStockPhoto, Corbis, BigStockPhoto,Dreamstime, FreeDigitalPhotos.net, iStock,
Shutterstock ইত্যাদি।


4. ফটোগ্রাফি ব্যবসার জন্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী।


        প্রাথমিকভাবে আপনার যে জিনিসগুলি দরকার হবে সেগুলি হল একটি ক্যামেরা, কিছু ভেরিয়েবল লেন্স, ফটোগ্রাফিতে ব্যবহৃত সফ্টবক্স, ফটোগ্রাফি স্ট্যান্ড, সাদা কালারের ছাতা, স্পিড ফ্ল্যাশ লাইট, স্পিড ফ্ল্যাশ ট্রিগার, ট্রাইপড ইত্যাদি । এর পাশাপাশি আপনাকে হাই স্পিড ইন্টার্নেট সহ একটি কম্পিউটার কিনতে হবে যার মধ্যে আপনি ফটোগুলি কাজটা করতে পারেন এবং প্রয়োজনবোধে ফটোগুলি এডিট ও করতে পারেন।




         প্রথমেই খুব দামি ক্যামেরা বা লেন্স না থাকলেও চলবে। প্রথম ক্ষেত্রে আপনি আপনার কাছে যে ক্যামেরাটা আছে সেটা দিয়েই শুরু করতে পারেন। পরবর্তী সময়ে আপনার ব্যবসা বাড়ার পাশাপাশি মার্কেটের চাহিদা অনুযায়ী আপনি আপনার হাতিয়ার গুলি আপডেট করতে পারেন।
 একটা জিনিস মাথায় রাখবেন আপনার সামগ্রী গুলি আপনার কাছে এক একটি সম্পদের মত, এগুলোকে যত্নে রাখা খুবই দরকার। কোথায় থেকে কম দামে সামগ্রী সংগ্রহ করতে পারেন সে বিষয়ে খোঁজ রাখুন।

Post a Comment

Previous Post Next Post